১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

করোনাকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সম্মুখ সারীর যুদ্ধে আনসার সদস্য মোঃ সুমন

আপডেট: মে ২, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দেশ ও জননিরাপত্তায় এবং দেশের যে কো র্দূযোগ মোকাবেলায় “নীরবে” কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা বরিশাল সদরে”রুপালী ব্যাংকে”অংগীভূত আনসার সদস্য র নিজ পরিবার ঝুঁকিতে রেখে ও নিজ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শাখার নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস (COVID-19) এর প্রার্দূভাব ২য় ঢেউ এর সংক্রমণ রোধে গ্রাহক/ জনসচেতনতায় সাহসিকতার সাথে সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

 

* সম্প্রতি বিশ্বে মহামারী আকার ধারন করেছে করোনা ভাইরাস চলছে এর ২য় ঢেউ, প্রতিদিন বিশ্বে এই ভয়াবহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরন করছে হাজার হাজার মানুষ, আক্রান্তও হচ্ছে প্রতিদিন হাজার হাজার।

 

বাংলাদেশেও এই মরনঘাতী করোনা ভাইরাস’র ২য় ঢেউ এর থাবায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা।বাংলাদেশ সরকার মহামারী এই করোনা ভাইরাস এর ২য় ঢেউ সংক্রমণ ও প্রতিরোধ কল্পে কয়েক ধাপে গত ১৪ মার্চ থেকে ০৫ ই মে পর্যন্ত জরুরী সেবা ব্যাতিত অফিস আদালত বন্ধ/সমিতি পরিসরে চালু রাখার ঘোষণা দেন। তবে সরকার ঘোষিত লগডাউনে অফিস আদালত বন্ধ থাকলেও জনসাধারণের আর্থিক চাহিদা পূরনের লক্ষ্যে আর্থিক প্রতিষ্ঠান ব্যাংক খোলা রয়েছে।

 

সরেজমিনে দেখা যায় শহর পর্যায়ের বিভিন্ন ব্যাংকের শাখা গুলোতে ব্যাংক গ্রাহকদের ভীড় ছিল অনেকটাই,বরিশাল মহানগরী র নথুল্লাবাদে,রূপালী ব্যাংক লিঃ সেন্ট্রাল বাস টার্মিনাল শাখা বরিশালে গ্রাহকদের লাইন ব্যাংকের দ্বিতীয় তলা ক্যাশ কাউন্টার হতে সিড়ি দিয়ে মেইন রাস্তা পর্যন্ত চলে গেছে। তবে ঐ ব্যাংক শাখায় নিরাপত্তা, শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন অংগীভূত আনসার সদস্য মোঃ সুমন বিএএম (বার)।

 

তিনি নিরাপত্তা, শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি নিজ জীবনের ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও সাহসিকতার সাথে “করোনা ভাইরাস”(COVID-19) এর ২য় ঢেউ বিস্তার রোধে নিজের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে, প্রত্যেক গ্রাহকদেরকে ব্যাংক শাখায় প্রবেশের সাথে সাথে প্রত্যেক গ্রাহকের শরীরের তাপমাএ মাপা, সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, হ্যান্ডস্যানিটাইজার ব্যাবহারের জন্য সচেতনা প্রদান করেন।

 

এছাড়াও ব্যাংকে আসা গ্রাহকদের সচেতনত করনসহ এক গ্রাহকদের থেকে অন্য গ্রাহকদের অন্তত ৩-৪ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে লাইন নিশ্চিত করছেন অংগীভূত আনসার সদস্য মোঃ সুমন বিএএম (বার) পরে লাইনের সিরিয়াল অনুযায়ী গ্রাহকরা দূরত্ব বজায় রেখে ০৫ জন করে ব্যাংকের ভিতর এসে লেনদেনের কাজ শেষ করে বের হওয়ার পর পুনরায় আবার ০৫ জন করে ব্যাংকে প্রবেশ করে লেনদেনের কাজ শেষ করে এভাবেই পর্যায়ক্রমে লেনদেন চলে প্রতিদিন। তবে করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ই রুপালী ব্যাংকের ঐ শাখায় লেনদেন হচ্ছে।

 

ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাসে বিভিন্ন ব্যাংকে কর্মতর কয়েক জন গ্রাহকদের সেবা দিতে গিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যু বরন ও করেছেন। এদিকে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর জেলা কমান্ড্যান্ট বরিশাল,

 

জনাব আমমার হোসাইন বলেন, বরিশাল জেলায় ব্যাংকসহ বিভিন্ন সংস্থায় অংগীভূত সকল আনসার সদস্যদের নিজে দূরত্ব বজায় ও নিজেকে সুরক্ষিত রেখে অধিক ও র্সবোচ্চ সতর্কতার সাথে নিরাপত্তা শৃখলা রক্ষার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস’র ২য় ঢেউ সংক্রমণ ও বিস্তাররোধে এবং সচেতনতায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নিরাপত্তা, শৃংখলা রক্ষার দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছেন।

 

এছাড়াও জেলা কমান্ড্যান্ট বরিশাল,মহদয়, তিনি মোবাইল ফোনে বরিশাল জেলার সকল আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিচ্ছেন এবং একটু পর পর সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়া,

 

গরম পানি ও লবন দিয়ে কুলকুচি করা এছাড়া সকল আনসার সদস্যদেরকে দায়িত্ব পালন কালে ফুল হাতার ইউনিফরম, মুখে মাস্ক এবং বিশেষ করে পাবলিক সার্ভিস যেমন ব্যাংক/ সংস্থায় অংগীভুত আনসার সদস্যদের সাধারন জনগনের কাছ থেকে কমপক্ষে ০৬ ফুট সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ প্রদান করেন।

 

বরিশালে রুপালী ব্যাংক লিঃ সেন্ট্রাল বাস টার্মিনাল শাখা ব্যবস্থাক বলেন- আমাদের শাখায় অংগীভূত আনসার সদস্য মোঃ সুমন বিএএম (বার) তার দায়িত্ব পালনে অত্যান্ত দক্ষতার পরিচয় দিয়ে শাখার নিরাপত্তা, শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে ও গ্রাহক জনসচেতনতায় নিজ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রসংশনীয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

 

অংগীভূত আনসার সদস্য মোঃসুমন বিএএম (বার) বলেন,,বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী একটি আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এ বাহিনীর সদস্য/সদস্যা,যারা রয়েছেন দেশের যে কোন পরিস্থিতিতে যে কোন দূর্যোগ/মহামারী মোকাবেলায়,, অফিস আদেশ পাওয়া মাএ দেশের প্রতিটি জেলা,উপজেলা, ইউনিয়ন, গ্রাম, ওর্য়াড,পাড়া,

 

মহল্লায়,,প্রত্যন্ত অঞ্চলে মাঠ পর্যায়ে রয়েছে এলাকায় ভিত্তিক অসংখ্য আনসার-ভিডিপি সদস্য/ সদস্যা,দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও জননিরাপত্তার পাশাপাশি,দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে,,,

 

নিজের জীবন বাজি রেখে নিরবে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যা’রা, আমি মনে করি বর্তমান সময়কালটা হচ্ছে সোস্যাল মিডিয়ার যুগ তাই এবাহিনীর কর্যক্রম কিছুটা হলেও যদি মূল দ্বারার মিডিয়া চ্যানেল গুলোতে প্রকাশ/সম্প্রচারিত হতো তাহলে আমার দৃড় বিশ্বাস বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর,,কার্যক্রম সম্পর্কে অনেকের ধারণা টা পাল্টে যেত।

 

তিনি আরও বলেন নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি দেশের যে কোন র্দূযোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা র্সবদা সব সময়ে আছে ছিলো এবং থাকবে।

 

এ ছাড়াও আনসার সদস্য মোঃ সুমন বিএএম (বার) তার নিজ উপজেলা ঝালকাঠির রাজাপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং ঐ উপজেলার আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা গনদের সহকারে করোনা ভাইরাস (COVID-19) এর প্রথম পর্যায়ে সম্পূর্ণ নিজ উদ্যোগ ও অর্থায়নে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর পক্ষে সাত হাজারেও বেশি সার্জিক্যাল মাক্স বিতরণ করে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে।

75 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন